From
Subject
Time (UTC)
notification+zrdpevglrzi1@facebookmail.com
[আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফটো ভেরিফিকেশনে পড়লে , দ্রুত যোগাযোগ করুন ।] www.bdnetinfo24.comভাবিকে প্রথম
2015-05-21 17:16:18
To:
From: notification+zrdpevglrzi1@facebookmail.com
Subject:

[আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফটো ভেরিফিকেশনে পড়লে , দ্রুত যোগাযোগ করুন ।] www.bdnetinfo24.comভাবিকে প্রথম


Received: 2015-05-21 17:16:18
  DG Abdullah BD posted in আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফটো ভেরিফিকেশনে পড়লে , দ্রুত যোগাযোগ করুন ।       DG Abdullah BD 21 May at 10:16   www.bdnetinfo24.comভাবিকে প্রথম চুমু হায় মামুরা কেমনু আছেন। আমি সুরেশ বাড়ী কোলকাতা। আমি ইন্টারেষ্টিং গল্প আপনাদের শোনাবো। যা আজ থেকে প্রায় ১৪ বছর আগে ঘটেছিল। যাই হোক মূল গল্পে আসা যাক, আমি আমার দাদার বাড়ী বেড়াতে গিয়েছিলাম। আমাদের ফ্যামেলী কোলকাতাতে থাকলেও আমাদের অন্য সব আত্নীয় স্বজন একসাথে গ্রামে থাকতো । দাদার গ্রামে গিয়ে যে মহিলাটি আমার সবসময় নজর কাড়তো তিনি আমার চাচাতো ভাই এর বউ। তার দুদ দুটো, চালার সময পাছা দুলানো সত্যিই আমাকে সবসময় পাগল করে দিতো। আমি সবসময় তাকে কিস করার স্বপ্ন দেখতাম, আমার মন চাইতো তার সাথে মেলামেশা করতে যদিও আমাকে শুধু তার দেহ দেখেই সাধ মিটাতে হতো। যাইহোক আমি আমি মোটামোটি দেখতে খারাপ ছিলাম না, আমার উচ্চতা প্রায় ৬ফিট , মেশিটা প্রায় সাত ইঞ্চি, যা কোন মহিলাকে আনন্দ দেওয়ার জন্য যথেষ্ট । দিনটি ছিল রবিবার। চাচী আমাকে খুব সকালে বিছানা থেকে ডেকে তুলল। তারপর বলল, তুই একটু বাজার যা, তোর রাগা ভাবীর কিছু জিনিসপত্র লাগবে এনে দে। আমি ভাবি বাসায় গেলাম, ভাবী আমাকে একটা লিষ্ট ধরিয়ে, লিষ্ট দেখে আমি না হেসে পারলাম না। লিষ্টে একটা জিনিস আছে যাতে লিখা আছে জন্মনিয়ন্ত্রণের ঔষুধ, আমাকে হাসতে দেখে ভাবীও হাসতে শুরু করল, ভাবি জিজ্ঞেস করল হাসছো কেন। আমার মুখ ফসকে সেদিন বেরিয়ে গিয়েছিল কথা গুলো, “ভাবী তুমি হাসলে তোমাকে দেখতে খুব সুন্দর লাগে, তোমাকে চেপে ধরে একটা কিস করতে ইচ্ছে করে। কি সুন্দুর তুমি?” আমার কথা গুলো শুনে ভাবী চোখ বড় বড় হয়েছে, সাথে গাল দুটোর রং লজ্জায় লাল হয়ে গেছে। একথা বলার পরতো আমার কি করবো দিশা পাচ্ছচিলমা না। ভেবেছিলাম ভাবী হয়তো চাচীকে সবকিছু বলে দেবে। রাগ করবে, কিন্তু তা হলো না, তার উল্টোটা হলো। ভাবী আমার কাছে আসলো, আস্তে আস্তে শরীরে হাত দিল, তারপর মাথা চুলটাকে শক্ত করে ধরে ধরে আমার ঠোঁটে ছোট্ট করে কিস করল। আর সাথে বলল, আজ রাতে আসবে কিন্তু অনেক কিস পাবা, সাথে চাইলে আরো কিছু ফ্রি দেবো আসবে তো দেবর সাহেব। আমি আমি অবাক হয়ে গেলাম, আর শুধু মাথা নড়িয়ে হ্যাঁ সূচক সম্মত্তি দিলাম। আসলে স্বপ্ন দেখছি না তো। যাই যা ঘটেছিল তা পুরোটাই সত্যি!! আমি অধীর আগ্রহে রাতে জন্য সারাদিন অপেক্ষা করছিলাম। কখন রাত আসবে দিনটা যেন বড় হয়েগিয়েছিল। রাতের আগমন ঘটল। রাত দশটাদিকে আমি রাগা ভাবীর মোবাইলে মিসকল দিলাম, দুর থেকে দেখলাম উনি দরজা খুলে রাখল। বাসায় ভাই থাকে না,ভাইয়া আসে ২সপ্তাহ পর পর। আমি আশে পাশে দেখে নিয়ে ঘরের ভিতরে ঢুকলাম। ভাবী চটপট করে দরজা বন্ধ করে দিল। তারপর আমাকে বুকের মধ্যে চেপে ধরল। আমি আমার খেলা শুরু করলাম। প্রথমে ফেঞ্চ কিস দিয়ে শুরু করলাম। কিস করার সময় ভাবীর শরীরে ছন্দে ছন্দে নেচে উঠল। আমি কানের লতি কাঁমড়ে ধরলাম। ভাবী আস্তে করে আহ্ আহ্ শব্দ করল। আমার একটা হাত ভাবী বুকের মধ্যে রাখলাম আস্তে আস্তে টেপা শুরু করলাম। ভাবী আমাকে বাঁধা দিলনা। আমার সাহস তো আরো বেড়ে গেল আস্তে করে রাগার কমড়ে হাত দিলাম, হাত দিয়ে শাড়ির গিটটা খোলা শুরু করলাম। আর অন্য দুদ টিপেই চলেছি। আস্তে আস্তে পুরো শাড়িটাই খুলে ফেললাম। শুধু মাত্র পেটিকোট আর ব্লাউজ ছাড়া। ভাবীর বুক থেকে পেটের জমি,খোলা পিট সবই আমি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি । আমি যখন উনার তলপেটে কিস করছিলাম রাগাও সমান তালে আমাকে কিস করে করছিল। আর শরীররে মোচর দিয়ে উঠছিল। তারপর ভাবী আমার ডান হাতটা হাতে নিয়ে উনার পাসির(ভদায়) এর উপর রাখলো। ভাবী চাইছিল আমি উনার ভোদাটাকে গরম করি। এক হাত দিয়ে ভাবীর ভোদাটা, আর আরেক হাত দিযে ভাবির ব্লাউজ তারপর পেটিকোটের ফিতা খুলো ফেললাম। পেটিকোটের্ ফিতা খুলতেই বেরিয়ে এল ভাবীর শরীরের স্বর্গ। লদলদে চোখ ঝলসানো পাছার মাংশ্ যা আমাকে প্রথম থেকেই টানতো।প্রথমে পছায় হাত দিয়ে আমার শরীরের সাথে লাগালাম, কিছুক্ষন হাতটা রাগা ভাবীর পাছার সাথে ঘোষলাম। আমার একটা দুদের বোঁটাটা মুখে নিয়ে চাটতে শুরু করলাম। দুদ চুষতে চুষতে আমার পাছা ভোদায় নাড়তে নাড়তে ভাবী এতটাই হট হয়ে গেছে যে, য়ে ভাবী ভোদায় রসে ভরে গেছে। ভাব আমাকে বিছানার উপর টেনে নিয়ে পাটাকে ফাঁক করে বলল তোমার লাঠিটা ঢুকায় এখন। তারাতাড়ী আমার আর সইছে না। কিন্তু আমার মনে অন্য রকম চিন্তা ছিল। বন্ধু বান্ধবের কাছে শুনেছিলাম মেয়েদের ভোদায় চাটার কথা, মেয়েদের ভোদায় এর ভোদায় এর রস নকি খেতে দারুন লাগে। পুরো গল্প পড়তে আমাদের সাইটের দেওয়া লিঙ্ক থেকে পড়ে নিন www.bdnetinfo24.com       Like     Comment     Share    
   
 
   আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফটো ভেরিফিকেশনে পড়লে , দ্রুত যোগাযোগ করুন ।
 
   
   
 
DG Abdullah BD posted in আপনার ফেসবুক একাউন্ট ফটো ভেরিফিকেশনে পড়লে , দ্রুত যোগাযোগ করুন ।
 
   
DG Abdullah BD
21 May at 10:16
 
www.bdnetinfo24.comভাবিকে প্রথম
চুমু
হায় মামুরা কেমনু আছেন। আমি
সুরেশ বাড়ী কোলকাতা। আমি
ইন্টারেষ্টিং গল্প আপনাদের
শোনাবো। যা আজ থেকে প্রায়
১৪ বছর আগে ঘটেছিল। যাই
হোক মূল গল্পে আসা যাক, আমি
আমার দাদার বাড়ী বেড়াতে
গিয়েছিলাম। আমাদের ফ্যামেলী
কোলকাতাতে থাকলেও আমাদের
অন্য সব আত্নীয় স্বজন
একসাথে গ্রামে থাকতো । দাদার
গ্রামে গিয়ে যে মহিলাটি আমার
সবসময় নজর কাড়তো তিনি
আমার চাচাতো ভাই এর বউ। তার
দুদ দুটো, চালার সময পাছা
দুলানো সত্যিই আমাকে সবসময়
পাগল করে দিতো। আমি সবসময়
তাকে কিস করার স্বপ্ন দেখতাম,
আমার মন চাইতো তার সাথে
মেলামেশা করতে যদিও আমাকে
শুধু তার দেহ দেখেই সাধ মিটাতে
হতো। যাইহোক আমি আমি
মোটামোটি দেখতে খারাপ ছিলাম
না, আমার উচ্চতা প্রায় ৬ফিট ,
মেশিটা প্রায় সাত ইঞ্চি, যা
কোন মহিলাকে আনন্দ দেওয়ার
জন্য যথেষ্ট । দিনটি ছিল
রবিবার। চাচী আমাকে খুব সকালে
বিছানা থেকে ডেকে তুলল। তারপর
বলল, তুই একটু বাজার যা, তোর
রাগা ভাবীর কিছু জিনিসপত্র
লাগবে এনে দে। আমি ভাবি বাসায়
গেলাম, ভাবী আমাকে একটা লিষ্ট
ধরিয়ে, লিষ্ট দেখে আমি না হেসে
পারলাম না। লিষ্টে একটা জিনিস
আছে যাতে লিখা আছে
জন্মনিয়ন্ত্রণের ঔষুধ, আমাকে
হাসতে দেখে ভাবীও হাসতে শুরু
করল, ভাবি জিজ্ঞেস করল
হাসছো কেন।
আমার মুখ ফসকে সেদিন বেরিয়ে
গিয়েছিল কথা গুলো, “ভাবী তুমি
হাসলে তোমাকে দেখতে খুব
সুন্দর লাগে, তোমাকে চেপে ধরে
একটা কিস করতে ইচ্ছে করে। কি
সুন্দুর তুমি?”
আমার কথা গুলো শুনে ভাবী চোখ
বড় বড় হয়েছে, সাথে গাল দুটোর
রং লজ্জায় লাল হয়ে গেছে।
একথা বলার পরতো আমার কি
করবো দিশা পাচ্ছচিলমা না।
ভেবেছিলাম ভাবী হয়তো চাচীকে
সবকিছু বলে দেবে। রাগ করবে,
কিন্তু তা হলো না, তার উল্টোটা
হলো। ভাবী আমার কাছে
আসলো, আস্তে আস্তে শরীরে
হাত দিল, তারপর মাথা চুলটাকে
শক্ত করে ধরে ধরে আমার ঠোঁটে
ছোট্ট করে কিস করল। আর
সাথে বলল, আজ রাতে আসবে
কিন্তু অনেক কিস পাবা, সাথে
চাইলে আরো কিছু ফ্রি দেবো
আসবে তো দেবর সাহেব। আমি
আমি অবাক হয়ে গেলাম, আর শুধু
মাথা নড়িয়ে হ্যাঁ সূচক সম্মত্তি
দিলাম। আসলে স্বপ্ন দেখছি না
তো। যাই যা ঘটেছিল তা পুরোটাই
সত্যি!!
আমি অধীর আগ্রহে রাতে জন্য
সারাদিন অপেক্ষা করছিলাম।
কখন রাত আসবে দিনটা যেন বড়
হয়েগিয়েছিল। রাতের আগমন
ঘটল। রাত দশটাদিকে আমি রাগা
ভাবীর মোবাইলে মিসকল দিলাম,
দুর থেকে দেখলাম উনি দরজা খুলে
রাখল। বাসায় ভাই থাকে না,ভাইয়া
আসে ২সপ্তাহ পর পর। আমি
আশে পাশে দেখে নিয়ে ঘরের
ভিতরে ঢুকলাম। ভাবী চটপট করে
দরজা বন্ধ করে দিল। তারপর
আমাকে বুকের মধ্যে চেপে ধরল।
আমি আমার খেলা শুরু করলাম।
প্রথমে ফেঞ্চ কিস দিয়ে শুরু
করলাম। কিস করার সময় ভাবীর
শরীরে ছন্দে ছন্দে নেচে উঠল।
আমি কানের লতি কাঁমড়ে ধরলাম।
ভাবী আস্তে করে আহ্ আহ্ শব্দ
করল। আমার একটা হাত ভাবী
বুকের মধ্যে রাখলাম আস্তে
আস্তে টেপা শুরু করলাম। ভাবী
আমাকে বাঁধা দিলনা। আমার সাহস
তো আরো বেড়ে গেল আস্তে
করে রাগার কমড়ে হাত দিলাম,
হাত দিয়ে শাড়ির গিটটা খোলা শুরু
করলাম। আর অন্য দুদ টিপেই
চলেছি। আস্তে আস্তে পুরো
শাড়িটাই খুলে ফেললাম। শুধু মাত্র
পেটিকোট আর ব্লাউজ ছাড়া।
ভাবীর বুক থেকে পেটের
জমি,খোলা পিট সবই আমি
স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি । আমি যখন
উনার তলপেটে কিস করছিলাম
রাগাও সমান তালে আমাকে কিস
করে করছিল। আর শরীররে
মোচর দিয়ে উঠছিল।
তারপর ভাবী আমার ডান হাতটা
হাতে নিয়ে উনার পাসির(ভদায়) এর
উপর রাখলো। ভাবী চাইছিল আমি
উনার ভোদাটাকে গরম করি। এক
হাত দিয়ে ভাবীর ভোদাটা, আর
আরেক হাত দিযে ভাবির ব্লাউজ
তারপর পেটিকোটের ফিতা খুলো
ফেললাম।
পেটিকোটের্ ফিতা খুলতেই
বেরিয়ে এল ভাবীর শরীরের
স্বর্গ। লদলদে চোখ ঝলসানো
পাছার মাংশ্ যা আমাকে প্রথম
থেকেই টানতো।প্রথমে পছায়
হাত দিয়ে আমার শরীরের সাথে
লাগালাম, কিছুক্ষন হাতটা রাগা
ভাবীর পাছার সাথে ঘোষলাম।
আমার একটা দুদের বোঁটাটা মুখে
নিয়ে চাটতে শুরু করলাম। দুদ
চুষতে চুষতে আমার পাছা ভোদায়
নাড়তে নাড়তে ভাবী এতটাই হট
হয়ে গেছে যে, য়ে ভাবী ভোদায়
রসে ভরে গেছে। ভাব আমাকে
বিছানার উপর টেনে নিয়ে পাটাকে
ফাঁক করে বলল তোমার লাঠিটা
ঢুকায় এখন। তারাতাড়ী আমার
আর সইছে না। কিন্তু আমার মনে
অন্য রকম চিন্তা ছিল। বন্ধু
বান্ধবের কাছে শুনেছিলাম
মেয়েদের ভোদায় চাটার কথা,
মেয়েদের ভোদায় এর ভোদায় এর
রস নকি খেতে দারুন লাগে।
পুরো গল্প পড়তে আমাদের
সাইটের দেওয়া লিঙ্ক থেকে পড়ে
নিন www.bdnetinfo24.com
 
   Like
   Comment
   Share
 
 
   
   
 
View Post
   
Edit Email Settings
 
   
   
Reply to this email to comment on this post.
 
   
   
 
This message was sent to deleted@email-fake.pp.ua. If you don't want to receive these emails from Facebook in the future, please unsubscribe.
Facebook, Inc., Attention: Department 415, PO Box 10005, Palo Alto, CA 94303